ঢাকা মঙ্গলবার, মে ২৮, ২০২৪
দিনাজপুরে অপহরণকারী ও নকল স্বর্ণের বার প্রতারণা কারি চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার
  • সুলতান মাহমুদ, দিনাজপুর:
  • ২০২৪-০৪-০৮ ০৭:১৫:০৬

দিনাজপুরে অটো চালককে অপহরণ করে মুক্তিপণ গ্রহণ ও ২৯ গ্রাম ওজনের নকল স্বর্ণের বার কে আসল স্বর্নের বার বলে  বিশ্বাস তৈরি করা চক্রের ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আজ রবিবার দুপুর ১ টার দিকে দিনাজপুর সদর সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ জিন্নাহ আল মামুন সংবাদ সম্মেলন করে ৪ জনকে আটকের সংবাদটি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতারকৃত অপহরণকারীরা হল জয় চন্দ্র রায় (২০)।সে দিনাজপুর সদর উপজেলার শেখহাটি গ্রামের বুদু রায়ের ছেলে।
অপরজন মাহফুজুল আলম হৃদয় (২৭) ।সে সদর উপজেলাধীন শেখহাটি গ্রামের নবীন হোসেনের ছেলে। তার বিরুদ্ধে ডাকাতি সহ বেশ কয়েকটি মামলা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

নকল স্বর্ণের বার কে আসল স্বর্ণ বলে প্রচারণা করার দায়ে আটককৃত ব্যক্তির নাম তোফাজ্জল হোসেন (৫৩)। সে গাইবান্ধা সদর উপজেলার দক্ষিণ গিদারি চরকের হাট গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে।
অপরজন হল হাসিনুর রহমান (৫২) দিনাজপুর সদর উপজেলার কিসমত মাধবপুর গ্রামের মৃত ওমর আলীর ছেলে।

কোতোয়ালি থানা পুলিশ জানায় , গত ৬ এপ্রিল আল আমিন (১৮) নামক এক অটোচালককে  ভাড়া নেওয়ার উদ্দেশ্যে রাত সাড় ৯ টার দিকে জয়চন্দ্র ও মাহফুজুর রহমান হৃদয় অটোরিকশা সহ অটোচালক আল আমিনকে অপহরণ করে।

অপহরণকারীরা আল আমিনের ব্যবহৃত ফোন দিয়ে তার পরিবারের নিকট জানায় আল-আমিনকে অপহরণ করা সহ অটোরিক্সা তাদের হেফাজতে রয়েছে এবং অটোচালক আল আমিনকে শারীরিক নির্যাতন করা হচ্ছে। আলামিনের চিৎকারের  শব্দ তার ব্যবহৃত ফোন দ্বারা তার পরিবারের কাছে জানিয়ে দেওয়া হয়। এবং আলামিনের পরিবারকে দ্রুত তাদের একটি নাম্বারে বিকাশে এক লক্ষ টাকা দাবি করে। পরিবারের অন্যান্য সদস্য উপায়ান্তর না পেয়ে অপহরণকারীদের কে ৪০ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে প্রদান করে। তারপর অপহরণকারীরা আলামিন কে আরো নির্যাতনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। উপায়ান্তর না পেয়ে অটো চালক আল-আমিনের পরিবারের সদস্যরা কোতোয়ালি থানা পুলিশের সহযোগিতা পেয়ে অপহরণকারীদেরকে সহ অপহৃত আল-আমিনকে উদ্ধার করা হয় পুলিশ।

নকল স্বর্ণের বার কে আসল স্বর্ণের বার উল্লেখ করে উক্ত ঘটনায় প্রতারক চক্রটি স্থানীয় নিপুন বাবু স্বর্ণকারের নিকট নকল স্বর্ণের বার বলে প্রচার করে। নকল স্বর্ণের বারের ওজন ২৯ গ্রাম টি দেখিয়ে প্রতারক চক্রটি দশ আনা ওজনের আসল স্বর্ণের একজোড়া দুল ও হাতের এক জোড়া বালা নেয়। পরবর্তীতে যখন নকল স্বর্ণের বারটি পরীক্ষা করে দেখা হয়। তখনি আসল ঘটনা প্রকাশ পায় যে এটি হচ্ছে নকল স্বনির্ভর বার।  এরপর থেকেই প্রতারক চক্র ধোঁয়াছোঁয়ার বাইরে চলে যায়। পুলিশ পরবর্তীতে ঔ নকল স্বনির্ভর সরবরাহকারী দের কে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে প্রতারক চক্রের দুই সদস্যকে কে গ্রেফতার করে।

কোতোয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ ফরিদ হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন পৃথক পৃথক দুটি ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে অপহরণকারী ও প্রতারক চক্রের দুজন দুজন করে ৪ জনকে গ্রেফতার করে। অপহরণকারী ও প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজু করার পর তাদেরকে আদালতে পূরণ করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন চক্রটির নিকট থেকে অটো রিক্সা নকল স্বর্ণের বার উদ্ধার ও নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

নাঙ্গলকোটের অটোরিকশা চালককে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে হত্যা: ঘাতক আটক
সড়ক-মহাসড়কে যানবাহন থেকে চাঁদা উত্তোলন, র‌্যাবের অভিযানে গ্রেফতার ১১
শিশু শ্রমিককে বলাৎকারের অভিযোগে রেস্তোরাঁ মালিক রফিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ
সর্বশেষ সংবাদ